যেমন ধরো, আগামীকাল তোমার পরীক্ষা। এখন কি তুমি বলবে– আজকে ভালো লাগছে না। আজকে থাক!! বা আজকে গা ম্যাজম্যাজ করতেছে, আজকের দিনটা যাক কালকে পড়ব। না, তুমি সেটা করবা না। কারণ যেকোনোভাবেই হোক তোমার বাঁশটা ঠেকাইতে হবে। তাই, দরকার হলে সারারাত জেগে হলেও পড়াটা শেষ করো। কারণ, তুমি জানো টিচার তোমার জন্য বাম্বু রেডি করে রাখছে। বাঁচার কোন উপায় নাই।

এখন কথা হচ্ছে, পরীক্ষার সময় না হয় টিচার বাম্বু রেডি করলো। কিন্তু লাইফের আরো অনেক কাজ আছে সেগুলার ক্ষেত্রে কি হবে? সেক্ষেত্রে মাঝে মধ্যে তোমার নিজের বাম্বু তোমার নিজেকেই দিতে হবে। জায়গামতো সঠিক টাইপের বাম্বু দিতে হবে। কারণ এই বাম্বুগুলো তিন টাইপের হয়।

নাম্বার ওয়ান হচ্ছে– হার্ড বাম্বু। অর্থাৎ তুমি নিজেই নিজেকে শক্ত একটা হার্ড ডেডলাইন দিলে। যেমন ধরো, তোমার এই রিপোর্টটা লিখতে হবে। তুমি নিজেই নিজেকে শক্ত কমান্ড দিলে– ভালো হোক, খারাপ হোক। এই ডোন্ট কেয়ার। আজকে রাত দশটার মধ্যে মাস্ট রিপোর্ট ইমেইল করতে হবে। অথবা আমার অনলাইনের ঐ কোর্সটা শেষ করতে হবে কিংবা ইউটিউবে আমি এই ভিডিও সিরিজটা ফিনিশ করতে হবে। যে করেই হোক এটা শুক্রবারের মধ্যে ফিনিশ করতেই হবো। কোন কম্প্রোমাইজ নাই। সো, তুমি যখন নিজেই নিজেকে শক্ত ডেডলাইন ইনফোর্স করবা, সেই কাজটা করে ফেলা তোমার জন্য অনেক ইজিয়ার হবে।

সেকেন্ড টাইপের বাম্বু হচ্ছে– সফট বাম্বু। এই নরম বা সফট বাম্বু ইন্ডাইরেক্টলি একটা চ্যালেঞ্জ নেয়া বা নিজেকে হালকা বোকা বানানো। যেমন ধরো, তুমি চ্যালেঞ্জ নিয়ে নিলা– আজকে থেকে টানা চারদিন কোন একটা কাজ করবা। সেটা ভালো হোক বা খারাপ হোক। হতে পারে টানা চারদিন ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করবে বা টানা চারদিন চার ঘন্টা ধরে পড়বে। বা টানা চারদিন চার ঘন্টা ধরে প্রোগ্রামিং করবে বা অন্য কোন একটা কাজ যেটা তুমি করতে চাচ্ছ কিন্তু আলসেমির জন্য শুরু করা হচ্ছে না।

এই জিনিসটা টানা চারদিন করতে পারার একটা চ্যালেঞ্জ নাও। কাজটা ভালো হোক বা খারাপ হোক। আউটপুট কিছু আসুক বা না আসুক তুমি টানা চারদিন করে দেখাবে। এইরকম একটা চ্যালেঞ্জ নিতে পারলে ইনডাইরেক্টলি তুমি তোমাকে কিছুটা লাইনে আনতে পারবে। এরপর চারদিন শেষ হওয়ার পর নেক্সট চারদিন একটানা সেই কাজটা চার ঘন্টা ধরে করার আরেকটা চ্যালেঞ্জ নাও। সেটা হয়ে গেলে এইবার আরো ১০দিন একটানা করার চ্যালেঞ্জ নাও। তাহলে দেখবে তোমার নিজের অজান্তেই জিনিসটা করার একটা অভ্যাস হয়ে যাবে। আর অভ্যাস হয়ে গেলে তোমাকে আর কেউ আটকাতে পারবে না।

থার্ড টাইপের বাম্বু হচ্ছে আইক্কাওয়ালা বাম্বু। এই বাম্বু কাজে লাগাতে হলে তোমার পকেটে যত টাকা আছে সেটা তোমার বড় ভাই বা আপুকে দিয়ে বলতে হবে। আমি এই কাজটা ওতো তারিখের মধ্যে করে দেখাতে পারলে আমার টাকাগুলো ফেরত দিবে। না হয় দিবে না। অথবা ওই কাজটা ফিনিশ না হলে ওতো তারিখের পর থেকে ওয়াফাই এর মডেম+ রাউটার এর চার্জার তুমি নিয়ে যাবে। দেখাবে আইক্কা দেখলেই কাজ শুধু হবে না বরং দৌড়াবে।

মানুষ হিসেবে আমরা শক্তের ভক্ত নরমের জম। মাঝে মধ্যে একটু আধটু শক্ত নিজে নিজে হতে পারলে খুবই ভালো। আর না হলে অন্যদের লাত্থি উষ্ঠা খেয়েই চলতে হবে।

4 Comments

  1. Today, I went to the beachfront with my children. I found a sea shell and gave
    it to my 4 year old daughter and said “You can hear the ocean if you put this to your ear.” She placed the shell to
    her ear and screamed. There was a hermit crab inside and it pinched her ear.
    She never wants to go back! LoL I know this is totally off topic but I had to tell someone!

  2. pragmatic play Reply

    Please let me know if you’re looking for a author for your
    weblog. You have some really good articles and I think
    I would be a good asset. If you ever want to take some of the load off,
    I’d love to write some content for your blog in exchange for a link back to mine.
    Please send me an e-mail if interested. Regards!

Write A Comment